কোহলির দৃঢ়তায় রক্ষা পেলেন আনুশকা

কোহলির দৃঢ়তায় রক্ষা পেলেন আনুশকা

ইংল্যান্ডের ২৮৭ রানের জবাবে ভারতের সংগ্রহ ২৭৪ রান। ভারতীয়দের মধ্যে সর্বোচ্চ রান অধিনায়ক বিরাট কোহলির। ২২৫ বলে ১৪৯ রান। আদিল রশিদের বলে পয়েন্টে ক্যাচ দিয়ে ফেরার সময় গোটা স্টেডিয়াম উঠে দাঁড়িয়ে হাততালি দিচ্ছে। কিন্তু বিরাটের চোখ তখন আটকে একদিকেই। হাসছেন, চুমুও ছুড়ে দিলেন।

অপরপক্ষের সেই মানুষটি আর কেউ নন। তিনি তার স্ত্রী এবং বলিউড অভিনেত্রী আনুশকা শর্মা। এরপরই ক্যামেরা ঘুরে গেল আনুশকার দিকে। তার মুখেও তখন তৃপ্তির হাসি। এক নাগাড়ে হাততালি দিয়ে চলেছেন। বাইশ গজে সামনে থেকে হয়ত লড়াই করেছেন বিরাট। কিন্তু আনুশকাও তো পরোক্ষভাবে এই যুদ্ধের সঙ্গে রয়েছেন। কারণ বিরাট ব্যর্থ হলে সমালোচকরা ফের একবার হয়ত বলি অভিনেত্রীকেই দায়ী করতেন। বিরাট সেই রাস্তাও বন্ধ করে দিলেন।

২০১৪ সালে ইংল্যান্ড সফরে এসে ১০ ইনিংসে ২৮৮ বল খেলে ১৩৪ রান করেছিলেন বিরাট। আর এবার এক ইনিংসেই করে ফেললেন ১৪৯ রান। ইংল্যান্ড বোলারদের তোপে একে একে যখন ফিরে যাচ্ছেন রাহানে, বিজয়, ধাওয়ানরা, তখন একাই লড়লেন বিরাট। পরে শতরানটি উৎসর্গ করলেন স্ত্রী আনুশকাকেই। দিনের খেলা শেষে সেকথা জানালেনও।

এদিনের ইনিংসে এক ঢিলে দুই পাখি মারলেন ভারত অধিনায়ক। একদিকে প্রথম টেস্টে দলকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তুললেন, অপরদিকে ইংল্যান্ডে রান পাননি বিরাট এই পরিসংখ্যানও ভেঙে দিলেন। ১৪৯ রানের ইনিংসে হয়ত দু’‌তিনটি জীবনদান পেয়েছেন। কিন্তু তাতে তার কৃতিত্বকে ছোট করা সম্ভব নয়। আর কে না জানে একবার রক্তের স্বাদ পেয়ে গেলে বাঘ আরও হিংস্র হয়ে ওঠে। ঠিক তেমনই প্রথম ইনিংসেই সেঞ্চুরি পাওয়া কোহলি গোটা সিরিজে ইংরেজ বোলারদের যে চাপে রাখবে সে কথা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।