ছাত্রীর অদ্ভুত হাসির আতঙ্কে ফাঁকা গোটা স্কুল!

ছাত্রীর অদ্ভুত হাসির আতঙ্কে ফাঁকা গোটা স্কুল!

বাড়ির ছেলে-মেয়েদের স্কুলে পাঠাতে পারছেন না ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের জলপাইগুড়ি সদর ব্লকের পাহাড়পুরের চৌধুরিপাড়া ও তার আশপাশের গ্রামের বাসিন্দারা৷ কারণ ভূতের আতঙ্ক৷ যার জেরে বন্ধ হওয়ার মুখে ওই গ্রামের গোমস্তাপাড়া মোহনচন্দ্র প্রাথমিক বিদ্যালয়৷ এমন ঘটনায় চিন্তায় পড়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ৷

ঘটনার সূত্রপাত হয় বুধবার সকালে৷ তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীর অস্বাভাবিক আচরণকে কেন্দ্র করে ভূতের আতঙ্ক ছড়ায় ওই স্কুলে৷ চৌধুরিপাড়া ও তার আশপাশের গ্রামে রটে যায় যে, স্কুল থেকে ফেরার পথে ওই ছাত্রীকে ভূতে ধরেছে৷

ওই ছাত্রীর বাবা কাশিম আলি জানান, “স্কুল থেকে ফেরার পর থেকেই অস্বাভাবিক আচরণ করতে থাকে মেয়ে। একা একাই হাসতে থাকে। সেই হাসির শব্দে গায়ে কাঁটা দিয়ে উঠছিল সকলের। হাসতে হাসতেই মেয়ে বলছিল, আমার জন্য প্রার্থনা কর, না হলে ক্ষতি করব।”

জানা গেছে, কয়েক বছর আগে ওই স্কুলের পাশে আত্মহত্যা করেছিলেন এক মহিলা। চৌধুরিপাড়ার বাসিন্দাদের ধারনা, ওই মহিলার অতৃপ্ত আত্মাই ভর করেছে ওই ছাত্রীর উপরে। ফলে আরও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে সকলের মধ্যে।

লোকমুখে এই ভূতের গল্প ছড়িয়ে পড়তেই ওই স্কুলমুখো হচ্ছে না চৌধুরিপাড়া ও আশপাশের গ্রামের পড়ুয়ারা৷ গোমস্তাপাড়া মোহনচন্দ্র প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বর্তমান ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ১৫৫ জন। জানা গেছে, বৃহস্পতিবার উপস্থিতির সংখ্যা ছিল মাত্র ১৮ জন।