পুতিনও দেখতে যাবেন আর্জেন্টাইন ক্লাসিকো

পুতিনও দেখতে যাবেন আর্জেন্টাইন ক্লাসিকো

আর্জেন্টাইন ফাইনালের সুবাদে আবারও ফুটবল দুনিয়ায় পুতিনের আবির্ভাব। ফাইল ছবিআর্জেন্টাইন ফাইনালের সুবাদে আবারও ফুটবল দুনিয়ায় পুতিনের আবির্ভাব। ফাইল ছবিইউরোপের ক্লাব ফুটবলের সেরা প্রতিযোগিতা হচ্ছে চ্যাম্পিয়নস লিগ। এ কারণেই লিগে ব্যর্থ হওয়ার পরও ইউরোপের সেরা ক্লাব এখন রিয়াল মাদ্রিদকে। দক্ষিণ আমেরিকারও একটি ‘চ্যাম্পিয়নস লিগ’আছে। উত্তেজনায় কখনো কখনো সেটি চ্যাম্পিয়নস লিগকেও ছাড়িয়ে যায়, কোপা লিবার্তোদোরেস। প্রতিযোগিতাটির ইতিহাসে গত ৫৭ বছরে যা হয়নি, সেটাই হতে যাচ্ছে এবার। লিবার্তোদোরেসের ইতিহাসে এই প্রথম আর্জেন্টিনার দুই ক্লাব মুখোমুখি হচ্ছে ফাইনালে। ১১ তারিখে প্রথম লেগের পর দ্বিতীয় লিগে শিরোপার মীমাংসা হবে ২৪ কিংবা ২৫ তারিখ।

ব্রাজিলের ক্লাব গ্রেমিওকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে রিভার প্লেট। ব্রাজিলেরই আরেক ক্লাব পালমেইরাসকে বিদায় করে ফাইনালে গেছে রিভারের চিরশত্রু বোকা জুনিয়র্স। মহাদেশিয় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ের আর্জেন্টাইন ক্লাসিকো! এর উত্তেজনা টের পাওয়া যাচ্ছে বেশ আগ থেকেই। এ নিয়ে আর্জেন্টাইনদের আগ্রহ কতটা সেটা বুঝতে পারবেন লিওনার্দো প্যারাদেসের ঘটনায়। জেনিত সেন্ট পিটার্সবার্গের এই খেলোয়াড় ক্লাবের ম্যাচে নাকি ইচ্ছা করে লাল কার্ড দেখেছেন যাতে কোপা লিবার্তোদোরেসের ফাইনালের দিন খেলতে না হয়, তাহলে স্টেডিয়ামে থেকেই খেলা দেখতে পারবেন বোকার অন্ধভক্ত প্যারাদেস। যদিও প্যারাদেস এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন।

ভ্লাদিমির পুতিনের অবশ্য এ ম্যাচ দেখতে এত ভূমিকা করা লাগছে না। জি টুয়েন্টি সামিটের জন্য এমনিতেই বুয়েনেস এইরেসে যাওয়ার কথা পুতিনের। ঘটনাচক্রে ফাইনালের দ্বিতীয় লেগ হচ্ছে ওই সময়েই। এ কারণেই দুই ক্লাবের সভাপতির ম্যাচটি রবিবারে আয়োজন করার ইচ্ছা থাকলেও আর্জেন্টিনার ফুটবল কর্তৃপক্ষ ২৪ তারিখ অর্থাৎ শনিবার দেখতে চায়। কারণ, সে ক্ষেত্রে বিশ্বের বড় বড় সব নেতারা এই ক্লাসিকো দেখার সুযোগ পাবেন। আর্জেন্টিনার ফুটবলের দুর্দান্ত একটা বিজ্ঞাপনও হবে। রাশিয়ান রাষ্ট্রপতি এর মাঝেই এ খেলা দেখার ব্যাপারে নিজের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে নিরাপত্তা ঝুঁকির কথা শোনা গেলেও সে শঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছেন বুয়েনেস এইরেসের নিরাপত্তা মন্ত্রী মার্টিন ওকাম্পো, ‘যদি তিনি খেলা দেখতে চান এটা কোনো বিষয়ই না। পুতিন যদি আসেন, তবে আমরা একটা বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেব যা অন্য যে কোনো দেশের জাতীয় নেতার ক্ষেত্রে নেওয়া হয়। আমার মনে হয় না তিনি-ই একমাত্র যিনি এ খেলা দেখতে চান। অন্য রাষ্ট্রপতিরাও যদি আসেন তাহলে আরও দুর্দান্ত হবে।’