ফের ভারত ভ্রমণের সুযোগ পাচ্ছে ১০০ তরুণ

ফের ভারত ভ্রমণের সুযোগ পাচ্ছে ১০০ তরুণ

শত বছরের পুরোনো বইয়ের পাতা উল্টোতেই নাকে আসে মনমাতানো ঝাঁঝালো গন্ধ। ভারত, বাংলাদেশসহ পৃথিবীর বহু দেশের জানা-অজানা গান, গল্প, জীবনযাপনের গতি প্রকৃতির বিভিন্ন তথ্য নিখুঁতভাবে গুছিয়ে রাখা হয়েছে কক্ষগুলোতে।

কৃষ্টি-কালচার আর ইতিহাসের সন্নিবেশে কাঠের তাকগুলো পরিণত হয়েছে জীবন্ত মহিরূহে। ভারত সফররত বাংলাদেশের শত তরুণের সৌভাগ্য হয়েছিল ইন্দিরা গান্ধী ন্যাশনাল সেন্টার ফর দ্যা আর্টস এর এই সংগ্রহশালা ঘুরে দেখার।

শুধু সংগ্রহশালা নয় বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্যের একটি আগ্রার তাজমহল, আগ্রা ফোর্ট, সম্রাট হুমায়নের সমাধী সৌধ, কুতুব মিনারের মতো স্থাপত্য দর্শনের অনুভূতিগুলো এখনো শিহরণ জাগায়। আর এই সফরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ছিল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সরাসরি সাক্ষাৎ এবং কথা বলার সুযোগ।

ভারত-বাংলাদেশ সংস্কৃতি বিনিময়ের অংশ হিসেবে ষষ্ঠবারের মতো ভারত সফর করেছে বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে কৃতিত্ব অর্জনকারী ১০০ তরুণ। আবারও আসছে সে সুযোগ। বাংলাদেশ ইয়ুথ ডেলিগেশন-২০১৯ এর জন্য আবেদন আহ্বান করা হয়েছে।

ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশন এই পুরো প্রোগ্রামটি আয়োজন করে। ভারতীয় হাইকমিশন ঢাকার ফেসবুক পেজে এই সফরের বিষয়ে বিস্তারিত দেওয়া হয়েছে। আগামী ২০ নভেম্বর পর্যন্ত এই সফরে অংশ নিতে আবেদন করা যাবে।

আবেদনের জন্য শিক্ষা, সংস্কৃতিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে কৃতিত্ব অর্জনকারী তরুণদের জন্য ভারতকে নতুনভাবে জানা এবং নিজের দেশের সংস্কৃতিকে তুলে ধরার এটি অনন্য সুযোগ।

ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশন সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ ইয়ুথ ডেলিগেশন-২০১৯ এর জন্য নির্বাচিত হতে আবেদন পত্র আহ্বান করা হয়েছে। বাংলাদেশের ২১-৩৫ বছর পর্যন্ত নাগরিক এখানে আবেদন করতে পারবে। আবেদনকারীকে অবশ্যই তরুণদের জন্য আইকন এমন বিষয়ে কৃতিত্বের অধিকারী হতে হবে।

শিক্ষা, সংস্কৃতিসহ নিজেদের কর্মক্ষেত্রে সুনাম অর্জনকারী তরুণরা এই সফরে আবেদনের জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। আবেদনকারী তরুণদের মধ্য থেকে বাছাই করে উপযুক্ত প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষার জন্য মনোনিত করবে ঢাকাস্থ ভারতীয় হাই কমিশন।

মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কোন সংখ্যা উল্লেখ নেই। তবে মৌখিক পরীক্ষা শেষে ১০০ জনকে চূড়ান্ত ভাবে মনোনয়ন দেবেন তারা। চূড়ান্ত মনোনীত তরুণরাই বাংলাদেশ ইয়ুথ ডেলিগেশন-২০১৯ এর প্রতিনিধি হিসেবে ভারত সফরে অংশগ্রহণ করবে। ভারত সফরের এই কর্মসূচিতে যাতায়াত এবং আবাসনের সম্পূর্ণ ব্যয় ভারত সরকার বহন করবে।

গত ছয় বছর ধরে নিয়মিত বাংলাদেশের ১০০ তরুণ প্রতিনিধি দল ভারত সরকারের আমন্ত্রণে ভারত সফর করেছে। প্রতি বছর ভারতের বিভিন্ন প্রদেশকে সফরের জন্য নির্দিষ্ট করা হয়। গত বছর প্রতিনিধি দলের তরুণরা ভারতের দিল্লী, মুম্বাই এবং পুণে'র গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা, স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখেন।

এই সফরের শিক্ষণীয় বিষয়ে বাংলাদেশ ইয়ুথ ডেলিগেশন-২০১৮ প্রতিনিধি দলের সদস্য অমিয় প্রাপন চক্রবর্ত্তী অর্ক বলেন, এটা শুধু ঘুরে বেড়ানো বা ছবি তোলার ট্যুর নয়। ভারতের সংস্কৃতিকে চোখে দেখে মন দিয়ে অনুভব করা আর নিজেদের সংস্কৃতিকে তুলে ধরার এক অনন্য প্লাটফর্ম।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী কৌশল কেন্দ্রে তরুণদের বিভিন্ন বিষয়ে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দিয়ে স্বনির্ভর করে গড়ে তোলার যে চেষ্টা তা আমার জন্য ভীষণ শিক্ষণীয় হিসেবে কাজ করেছে।

তিনি আরও বলেন, আমি দেশের শিক্ষিত, স্বল্প শিক্ষিত তরুণদের প্রশিক্ষণ দিয়ে উদ্যোক্তা তৈরির চেষ্টা করি। বাংলাদেশে এ রকম একটা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গড়ে তোলা আমার স্বপ্ন।