পরীক্ষাকেন্দ্রে বখাটেদের আগুনে ৭৫ শতাংশ দগ্ধ নুসরাত

পরীক্ষাকেন্দ্রে বখাটেদের আগুনে ৭৫ শতাংশ দগ্ধ নুসরাত

ফেনীর সোনাগাজীতে পরীক্ষাকেন্দ্রে আগুনে দগ্ধ হওয়া নুসরাত জাহানের শরীরের ৭৫ শতাংশ  পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ণ অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের আবাসিক সার্জন ড. পার্থ শংকর পাল। তিনি আরো জানান, তার অবস্থা আশঙ্কাজনক, তাকে আইসিইউতে নেয়া হবে। সেই সাথে তার শরীর থেকে কেরোসিনের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।  

 এর আগে শনিবার সকালে সোনাগাজীতে আলিমের পরীক্ষাকেন্দ্রে আগুনে দগ্ধ হন ইশরাত। তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে ফেনী সদর হাসপাতাল হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। নুসরাত পৌরসভার উত্তর চরছান্দিয়া গ্রামের মাওলানা মুচা মিয়ার মেয়ে।

অগ্নিদগ্ধ ছাত্রীর ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বলেন, আজ সকালে আরবি প্রথমপত্র পরীক্ষা দিতে মাদ্রাসায় যায় নুসরাত। এ সময় কতিপয় বখাটে তাকে পরীক্ষা কেন্দ্রের চারতলায় ডেকে নিয়ে তার গায়ে কেরোসিন জাতীয় পদার্থ নিক্ষেপ করে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে তার শরীরের বেশির ভাগ অংশ পুড়ে যায়।

তিনি বলেন, তার চিৎকার শুনে উপস্থিত লোকজন ও পরীক্ষার্থীরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে ফেনী সদর হাসপাতালে পাঠান। পরে ফেনী সদর হাসপাতালে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় নুসরাত জানান, তিনি পরীক্ষা কেন্দ্রে গেলে বোরকা পরা এক ছাত্রী তাকে বলেন- তার এক বান্ধবীকে (নিশাত) ছাদের ওপর মারপিট করা হচ্ছে। এ কথা শুনে তিনি ছাদে গেলে তার ওপর কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে বোরকা পরা কয়েকজন ছাত্রী পালিয়ে যায়।

সৌজন্যে : সময় নিউজ