Tuesday , August 22 2017
Home / রেডিও / রেডিওতে চাকরির খুটিনাটি !
fmradio-khobor24

রেডিওতে চাকরির খুটিনাটি !

খবর ২৪ : বর্তমানে রেডিওতে নানা ধরনের কাজ করে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ রয়েছে। ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত প্রথম বেসরকারি এফএম রেডিও- ‘রেডিও টুডে’র প্রধান বার্তা সম্পাদক সেলিম বাশার বলেন, ‘যারা ক্যারিয়ার হিসেবে সাংবাদিকতা নিতে চায় কিংবা ইলেক্ট্রনিক গণমাধ্যমে অন্যান্য কাজ করতে চায় তাদের জন্য রেডিওতে অনেক ক্ষেত্র রয়েছে। যেখানে তারা নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে পারবে।’

রেডিও জকি (আরজে) : একজন আরজে শ্রোতার কাছে তার রেডিও স্টেশনের প্রতিনিধিত্ব করে থাকেন। তাই আরজের দায়িত্ব অনেক। আরজে নিয়োগ দেয়ার সময় বেশ কিছু বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়ে থকে। এগুলো হলো  শুদ্ধ ও আকর্ষণীয়ভাবে বাংলা বলা, আইকিউ, গান সম্পর্কে ভালো জ্ঞান, শ্রোতাদের প্রভাবিত করার ক্ষমতা এবং সাম্প্রতিক নানা বিষয়ে ভালো জ্ঞান।

আরজে হওয়ার জন্য উক্ত গুণের অধিকারী স্নাতক পাস যে কেউ আবেদন করতে পারেন। তবে কিছ কিছু রেডিওতে আরজে হওয়ার জন্য এইচএসসি পাস বা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরতদেরও সুযোগ দেয়া হয়ে থাকে। বর্তমান সময়ে তরুণ-তরুণীদের মধ্যে এই পেশার প্রতি ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে।

রিপোর্টার : রিপোর্টার হওয়ার জন্য সাংবাদিকতা তো জানতেই হবে। আর শিক্ষাগত যোগ্যতা মোটামুটি স্নাতক পাস হলে চলে। তবে  স্নাতকোত্তরসহ সাংবাদিকতায় উচ্চতর ডিগ্রি থাকলে তাদের জন্য সুবিধা হয়।

রেডিওতে রিপোর্টার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় বিষয় সম্পর্কে ‘রেডিও আমার’-এর বার্তা প্রধান আবির হাসান জানান, ‘রেডিওতে রিপোর্টার হিসেবে কাজ করার জন্য সংবাদ তৈরির পাশাপাশি শুদ্ধ উচ্চারণ ও সুন্দরভাবে সংবাদ উপস্থাপনার যোগ্যতা থাকাটা জরুরি।

এছাড়া সততা, সুন্দর ব্যবহার, সাহসিকতা, বস্তুনিষ্ঠতা, অধ্যবসায়, নিয়মানুবর্তিতা, দায়বদ্ধতা ও বিচক্ষণতা থাকলে তাদের জন্য এই পেশায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সুবিধা হয়।’

সংবাদ পাঠক : সংবাদ পাঠকদের ব্যাপারে আবির হাসান বলেন, ‘ স্নাতক পাস শুদ্ধ ও আকর্ষণীভাবে বাংলা বলতে পারে এমন লোকদের জন্য সংবাদ পাঠক হিসেবে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। তবে দেশের অনেক রেডিওতে রিপোর্টাররাও সংবাদ পাঠ করে থাকেন। সেখানে শুধুমাত্র সংবাদ পাঠক হিসেবে খুব কম লোক নেয়া হয়।’

প্রডিউসার : রেডিওতে প্রডিউসার একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদ। এখানে দুই ধরনের প্রডিউসার কাজ করেন, প্রোগ্রাম প্রডিউসার ও নিউজ প্রডিউসার। প্রোগ্রাম প্রডিউসারদের মধ্যে আছে শিফট প্রডিউসার, অ্যাসোসিয়েট প্রডিউসার, অ্যাসিস্ট্যিান্ট প্রডিউসার, স্টেশন প্রডিউসার, আউটডোর ব্রডকাস্টিং প্রডিউসার।

আর অভিজ্ঞদের হেড অব প্রোগ্রাম হিসেবে কাজ করার সুযোগ থাকে। তবে শুরুতে সবাইকেই অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রডিউসার হিসেবে কাজ করতে হবে।

রেডিওতে প্রডিউসার হিসেবে যোগ দিতে চাইলে আপনাকে অন্তত স্নাতক পাস হতে হবে। তবে এজন্য সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সম্যক জ্ঞানসহ সাংস্কৃতিক পরিমন্ডল সম্পর্কে ভালো ধারণা এবং ব্যবস্থাপনায় দক্ষ হতে হবে।

আউট ডোর ব্রডকাস্টার (ওবি) : ওবি হিসেবে কাজ করতে চাইলে চ্যালেঞ্জ নেয়ার মানসিকতা থাকতে হবে। কারণ ওবিদের প্রধান দায়িত্ব বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক ও কর্পোরেট অনুষ্ঠান সম্পর্কে সরাসরি তথ্য দেয়া বা সাক্ষাৎকার নেয়া। এজন্য কোনো অনুষ্ঠানে গেলে অনুষ্ঠান কবে তার সঠিক তথ্য নেয়া, সাক্ষাৎকারের প্রয়োজন হলে প্রশ্নগুলো গুছিয়ে করা ইত্যাদি।

ওবিদের  স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর করা থাকলে ভালো হয়। নিজেকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা, গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা বা ব্যক্তি সম্পর্কে জ্ঞান রাখতে হবে। আর শুদ্ধ উচ্চারণের বিষয়টিকে সবচেয়ে বেশি প্রধান্য দেয়া হয়ে থাকে।

মিউজিক শিডিউলার : মিউজিক শিডিউলারের প্রধান কাজ রেডিওতে কোন গানের পর কোন গান বাজাবে তা ঠিক করা। এক্ষেত্রে গান বাছাইয়ের জন্য দিনের কোন সময়ে কোন গান শ্রোতারা পছন্দ করেন সে বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে। এ পদে কাজ করার জন্য স্নাতক করা থাকতে হবে। আর গান সম্পর্কে নিজের অগাধ জ্ঞান থাকতে হবে।

সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার : গানের সময় কতটুকু হবে, বিজ্ঞাপন কতটুকু সময় প্রচার করা হবে, আরজের উপস্থাপনা, ব্যাক গ্রাউন্ড মিউজিক সব মিলিয়ে সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ারের কাজ বেশ গুরুত্বপূর্ণ। একটি রেডিও স্টেশনে সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ারকে দক্ষতার পরিচয় দিতে হয় প্রতি পদে পদে। অন্যান্য পদের মতো এখানেও শিক্ষানবিস হিসেবে জায়গা দেয়া হয়।

এ সম্পর্কে জানা যায়, যারা বাসায় নিউউইন্ডো ফ্রুটি লুপসের মতো সফটওয়্যার চালাতে জানেন এবং টুকটাক এডিটিং করেন  তাদেরও বেছে নেয়া হয় এ পদের জন্য। এরপর তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাতো থাকছেই।

অ্যাড শিডিউলার : এফ এম রেডিওর আয়ের একটি বড় উৎস বিজ্ঞাপন প্রচার। বিজ্ঞাপনের হিসাব রাখা জরুরি। পাশাপাশি কোন সময় কোন বিজ্ঞাপন বাজবে তাও ঠিক করেন অ্যাড শিডিউলার। অ্যাড শিডিউলারদের সাধারণত উইনমিডিয়া, অডিও ভল্টরসহ প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার সম্পর্কে জ্ঞান থাকতে হবে।

মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস : মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস বিভাগ রেডিও স্টেশনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কর্পোরেট অ্যান্ড মিডিয়া হাউস থেকে বিজ্ঞাপন সংগ্রহ করে এ বিভাগ। এ বিভাগে কাজ করতে বাণিজ্যে স্নাতকদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়। মার্কেটিং বিভাগে কাজ করতে হলে ভালো বিপণন দক্ষতা থাকতে হবে।  ( সুত্র : দৈনিক ইনকিলাব ০৬.০৯.২০১৫ )

Check Also

ছাত্রীদের নগ্ন করে তল্লামি

ছাত্রীদের নগ্ন করে দেহ তল্লাশি!

খবর২৪: ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের একটি আবাসিক স্কুলে প্রায় ৭০ জন ছাত্রীকে নগ্ন করে তাদের দেহ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *