Tuesday , August 22 2017
Home / প্রযুক্তির খবর / যশোর জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের বিবৃতি
JDUJ-khobor24

যশোর জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের বিবৃতি

খবর ২৪ : যশোরে সাংবাদিকদের ইউনিয়ন নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হযেছে ।

সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের নামে একটি বিবৃতি বিভিন্ন পত্রিকায় পাঠানো হয়েছে ।

জাতীয়তাবাদ ও ইসলামী আদর্শের দাবিদার সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের পক্ষ থেকে পত্রিকায় দেওয়া একটি বিবৃতি তাদের হতবাক করেছে বলে জানিয়েছেন যশোর জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতারা ।

বিভ্রান্তি দূর করতে যশোর জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে নেতৃবৃন্দ সে বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন।

জনসম্মুখে কোন বির্তক সৃষ্টি না করার জন্য আমরা যে সহনশীলতা দেখিয়ে এসেছি উল্লেখিত বিবৃতিদাতারা সেটাকে দুর্বলতা মনে করে ধৃষ্টতাপূর্ণ ও শিষ্টাচার বহির্ভূত মন্তব্য করায় আমরা যারপরনাই ব্যথিত।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন দ্বি-ধারায় বিভক্তি হওয়ার পর ক্রমান্বয়ে তা রাজনৈতিক মতাদর্শ এবং ক্ষেত্রবিশেষে লেজুড়বৃত্তিতে জড়িয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে স্বাধীন মতাদর্শে বিশ্বাসী দলনিরপেক্ষ সাংবাদিক ইউনিয়ন গঠনের প্রয়োজন অনুভব করলেও নানা কারণে তা সম্ভব হয়ে ওঠেনি।

এ অবস্থায় কতিপয় সুযোগ সন্ধানী ব্যক্তি বা দলীয় এজেন্ট সাংবাদিক নেতৃত্বের নামে ব্যক্তিগত সুযোগ সুবিধা আদায়ের জন্য রাজনৈতিক দল বা নেতাদের হাতিয়ার হিসেবে ইউনিয়নকে ব্যবহার করতে থাকে।

এহেন পরিস্থিতিতে সম্প্রতি জাতীয় পর্যায়ের শীর্ষ পোড়খাওয়া সাংবাদিক নেতৃত্ব দলনিরপেক্ষ একটি ফেডারেশন গঠনের উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

ওই ফেডারেশনে যশোরের শীর্ষ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ যোগ দেন।

তারই ধারাবাহিকতায় যশোরে গত ১৩ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে সাংবাদিক নেতা ফকির শওকত ও মহিদুল ইসলাম মন্টুর নেতৃত্বে বৃহৎ পরিসরে দলনিরপেক্ষ সাংবাদিক ইউনিয়ন গঠনের লক্ষ্যে এক সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনে সাংবাদিক নেতা আনোয়ারুল কবির নান্টুসহ উল্লেখ্যযোগ্য সংখ্যক সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।

সম্মেলনে সর্বসম্মতিক্রমে যশোর জেলা সাংবাদিক ইউনিয়ন গঠন করা হয়।

এতে ফকির শওকতকে সভাপতি ও মোহাম্মদ সেলিমকে সাধারণ সম্পাদক করে ৭ সদস্য বিশিষ্ট একটি কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন সহ-সভাপতি শেখ দিনু আহমেদ, যুগ্ম সম্পাদক দেওয়ান মোর্শেদ আলম, কোষাধ্যক্ষ বদরুদ্দিন বাবুল, দপ্তর সম্পাদক মালেকুজ্জামান কাকা ও নির্বাহী সদস্য মোকাদ্দেসুর রহমান রকি।

দল নিরপেক্ষ ইউনিয়ন গঠনের প্রক্রিয়া যখন শুরু হয়েছে সেই সময়ে জামায়াত-শিবিরের রাজনৈতিক আদর্শে বিশ্বাসী সুবিধাবাদি কতিপয় ভুইফোড় সাংবাদিক অস্থির হয়ে উঠেছে।

সে কারণে তারা পরীক্ষিত সাংবাদিক নেতৃত্বের বিরুদ্ধে অশালীন ভাষায় আক্রমণ করতে কুণ্ঠাবোধ করেনি।

কুৎসা রটনাকারী জেইউজের নেতা নুর ইসলাম, মোস্তাফা রুহুল কুদ্দুস, এম আইয়ুব, তরিকুল ইসলাম তারেক এর রাজনৈতিক পরিচয় সম্পর্কে সকলেই অবগত।

এদের থেকে সাংবাদিক সমাজকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। অচিরেই এইসব সাংবাদিক নেতৃত্ব জনসম্মুখে চিহ্নিত হবে।

যারা দলনিরপেক্ষ সাংবাদিক ইউনিয়ন গড়তে চান তারা অপ্রচারে বিভ্রান্ত না হয়ে নতুন এই সংগঠনের পতাকাতলে সামিল হবেন।

নবগঠিত জেডিইউজের পক্ষ থেকে তাদেরকে স্বাগত জানানো হচ্ছে।

আমরা মনে করি, নিরপেক্ষ সাংবাদিক ইউনিয়ন গঠনের এই প্রক্রিয়া সময়ের দাবি।

কোন ব্যক্তি বিশেষ রাজনৈতিক দলের সদস্য হতে পারেন কিন্তু স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রে বিশ্বাসী কোন সাংবাদিক ইউনিয়ন রাজনৈতিক লেজুড়বৃত্তি করতে পারে না।

যা যেকোন সাংবাদিক ইউনিয়নের গঠনতন্ত্র পরিপন্থী।

Check Also

ছাত্রীদের নগ্ন করে তল্লামি

ছাত্রীদের নগ্ন করে দেহ তল্লাশি!

খবর২৪: ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের একটি আবাসিক স্কুলে প্রায় ৭০ জন ছাত্রীকে নগ্ন করে তাদের দেহ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *