Friday , June 23 2017
Home / আলোচিত খবর / কুমিল্লা ও মৌলভীবাজারে ‘জঙ্গি বিরোধী’ অভিযান
জঙ্গি বিরোধী অভিযান

কুমিল্লা ও মৌলভীবাজারে ‘জঙ্গি বিরোধী’ অভিযান

খবর২৪: কুমিল্লা ও মৌলভীবাজার সন্দেহভাজন দুটি জঙ্গি আস্তানায় ‘অপারেশন স্ট্রাইক আউট’ ও ‘অপারেশন মেক্সিমাস’ অভিযান শুরু করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। গত দুইদিন ধরে এই বাড়ি দুটো ঘিরে রেখেছিল পুলিশ।

কুমিল্লা শহরের কোটবাড়ির দক্ষিণ বাগমারা সংলগ্ন গন্ধমতিতে সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানায় ‘অপারেশন স্ট্রাইক আউট’ শুরু হয়েছে। এজন্য আস্তানার আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়।

আস্তানা থেকে আধা কিলোমিটার দূর পর্যন্ত সবার যাতায়াত বন্ধ করে দিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। সবাইকে সতর্ক অবস্থানে থাকতে বলা হয়।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রাম রেঞ্জের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) শফিকুল ইসলাম জানান, সকাল আটটা থেকে ‘অপারেশন স্ট্রাইক আউটের’ প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। এর অংশ হিসেবে আস্তানা এলাকার চারদিক ঘিরে ফেলা হয়েছে। আস্তানার আশপাশে যাতায়াতের সব রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া বিশ্বরোড থেকে কোটবাড়ি সড়কে যাওয়ার পথও বন্ধ।

শুক্রবার সকাল সাতটা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। আস্তানার আশপাশের এলাকায় গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেয়া হয়।

ঐ বাড়িটির নিচতলার আরেক পাশে বিজিবির এক সদস্যের পরিবার ভাড়া থাকে। দ্বিতীয় তলায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মেস করে থাকেন। তৃতীয় তলার নির্মাণকাজ এখনো কাজ শেষ হয়নি।

বৃহস্পতিবার কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন থাকায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযান স্থগিত রাখা হয়েছিল। জানানো হয়েছিল যে, শুক্রবার অভিযান চলবে।

এছাড়া মৌলভীবাজারের বড়হাট এলাকার জঙ্গি আস্তানায় ‘অপারেশন মেক্সিমাস’ শুরু করেছে সোয়াত সদস্যরা। সেখানেও অভিযানের জন্য আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে আইন শৃংখলাবাহিনী।

শুক্রবার সকাল ৯.৫২ মিনিটের দিকে অভিযান শুরু করে সোয়াত সদস্যরা। অভিযানের সময় ভেতর থেকে গুলি ও বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়।

রাতভর রেকি করার পর শুক্রবার সকাল পৌনে ৮টার দিকে তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছায় সোয়াত বাহিনী।

সকাল সাড়ে ছয়টা থেকে সাতটার মধ্যে শহরের আবুশাহ দাখিল মাদ্রাসার গলিতে দোতলা বাড়িটির আশপাশ থেকে গুলির শব্দ শোনা যায়।

এদিকে বড়হাট জঙ্গি আস্তানায় সোয়াতের অভিযানকে কেন্দ্র করে পুরো এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ঢাকা-সিলেট পুরাতন মহাসড়কের দু’পাশে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন রয়েছে। সড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে যান চলাচল সীমিত করা হয়েছে। সরিয়ে দেয়া হচ্ছে উৎসুক জনতাকে।

পুলিশ সুপার মো. শাহজালাল অভিযান সম্পর্কে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, সোয়াত সদস্যরা বাড়ির পরিবেশ ও অবস্থান দেখে চূড়ান্ত অভিযান শুরু করেছেন। তবে নির্দিষ্ট করে তিনি কোনো সময়ের কথা উল্লেখ করেননি।

সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে তিনি বলেন, পুলিশ যথেষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সিলেটে আতিয়া মহলে বিস্ফোরণের অভিজ্ঞতার আলোকে সার্বিক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, সিলেটের আতিয়া মহলে সেনাবাহিনীর ‘অপারেশন টোয়াইলাইট’ শেষ হওয়ার পরই পাশের জেলা মৌলভীবাজারে দুটি জঙ্গি আস্তানায় ‘অপারেশন হিট ব্যাক’ নামে অভিযান শুরু করে পুলিশ। এই অভিযানে ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সঙ্গে সোয়াতও যোগ দেয়।

নাসিরপুরে বৃহস্পতিবার অভিযান শেষে ছিন্নভিন্ন সাত থেকে আটজনের লাশ পাওয়া যায়।

Check Also

ছাত্রীদের নগ্ন করে তল্লামি

ছাত্রীদের নগ্ন করে দেহ তল্লাশি!

খবর২৪: ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের একটি আবাসিক স্কুলে প্রায় ৭০ জন ছাত্রীকে নগ্ন করে তাদের দেহ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *